মেনু নির্বাচন করুন
সাব- রেজিষ্ট্রার অফিস, তাজপুর

সিলেট জেলার ওসমানীনগর উপজেলার অর্ন্তগত তাজপুর ইউনিয়নের আওতাধীন তাজপুর-কদমতলা ঢাকা-সিলেট মহা সড়কের পাশে অবস্থিত বা-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

ক্র.  নং

সেবার ধরণ

সেবা প্রাপ্তিরঃসময়সীমা

সেবা দানকারী কর্মকর্তার

পদবী ও ঠিকানা

উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ

০১

দলিল রেজিস্ট্রীকরণ বা মোক্তারনামা তসদিককরণ।

১ দিন

সাব-রেজিস্ট্রার

সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা

জেলা রেজিস্ট্রার

০২

রেজিস্ট্রীকরণ অন্তে মূল দলিল ফেরৎ গ্রহণ।

অফিস ভেদে ১ মাস হইতে ১ বৎসর

-ঐ-

-ঐ-

০৩

তসদিককৃত মোক্তারনামা ফেরৎ গ্রহণ।

১ দিন

-ঐ-

-ঐ-

০৪

দলিলের নকল সংগ্রহ।

১ হইতে ৭ দিন

 

 

০৫

সম্পত্তি হস্তান্তর সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ।

-ঐ-

-ঐ-

-ঐ-

০৬

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্ততকরণ/লিখন

বিষয়ে সহায়তা গ্রহণ।

১ দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব-রেজিস্ট্রার

০৭

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্ততকরণ/লিখন বিষয়ে

রেজিস্ট্রীকরণে সহায়তা গ্রহণ।

১ দিন

-ঐ-

-ঐ-

০৮

দলিলের নকল বা তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে সহায়তা গ্রহণ।

১ দিন

-ঐ-

-ঐ-

০৯

মূল দলিল সংগ্রহে সহায়তা গ্রহণ।

১ দিন

-ঐ-

-ঐ-

১০

যে কোন আবেদন, দরখাস্ত ইত্যাদি লিখনে সহায়তা গ্রহন।

১ দিন

-ঐ-

-ঐ-

রেজিস্ট্রী অফিসে নাগরিকদের সেবার তালিকা

১।

স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির সম্পত্তি হস্তান্তর দলিল রেজিস্ট্রী করা হয়।

২।

দলিল রেজিস্ট্রীর জন্য গ্রহণের পর বালামে নকল পূবর্ক তাহা স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ করা হয়।

৩।

কোন দলিলহারাইয়া/ধ্বংস হইলে অথবা দলিলের লেখা অস্পষ্ট হইয়া গেলে সংশ্লিষ্টব্যক্তি/অন্য যে কোন ব্যক্তি তাহার প্রয়োজনে এখান হইতে দলিলের নকল পাইতেপারেন।

৪।

প্রত্যাশি ব্যক্তি বা সংস্থা তল্লাশীর মাধ্যমে হস্তান্তরিত দলিল সংক্রান্ত সকল তথ্য পাইতে পারেন।

৫।

প্রত্যাশি ব্যক্তি বা সংস্থা তল্লাশী করিয়া এখান হইতে দলিল লিখক/তল্লাশীকারীর মাধ্যমে এন.ই.সি. পাইতে পারেন।

রেজিষ্ট্রেশন ফিস

১।

কবালা, দানপত্র, বিনিময়, নাদাবী, সেটেলমেন্ট ইত্যাদি দলিলের সম্পত্তি মূল্যের উপর কমপক্ষে ১০০/- এবং সম্পত্তির মূল্য ৫০০০/- টাকার অধিক হলে ২% হারে ফিস।

২।

কোন ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে সম্পাদিত কোন বন্ধকনামা দলিল দ্বারা যে পরিমাণ অর্থকে নিরাপত্তা প্রদান করা উক্ত পরিমাণ অর্থকে দলিলের মূল্য ধার্য্য ক্রমে নিম্ন বর্ণিত হারে ফিস প্রদেয়।

 

(ক)  অনুর্ধ ৫ লক্ষ টাকা = ১% কিন্তু >২০০-৫০০ < টাকা

 

(খ)  ৫ লক্ষ টাকার উর্দ্ধে কিন্তু অনুর্ধ ২০ লক্ষ টাকা  = ০.২৫% কিন্তু >৫০০-২০০০ < টাকা

 

(গ)  ২০ লক্ষ টাকার উর্দ্ধে = ০.১০% কিন্তু >৩০০০-৫০০০ < টাকা

৩।

আমমোক্তার দলিলের ক্ষেত্রে ই+ই = ১০০+১০০ টাকা।

৪।

মুসলিম ব্যক্তিগত ধর্মীয় আইনে হেবা দলিলের ক্ষেত্রে সম্পত্তির মূল্য নির্বিশেষে ১০০ টাকা।

৫।

স্থাবর সম্পত্তি বন্টন নামা দলিলের ক্ষেত্রে ফিস প্রদেয়:

 

(ক)  ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

৫০০ টাকা

 

(খ)  ৩ লক্ষ টাকার উর্ধে কিন্তু অনুর্ধ ১০ লক্ষ টাকা

৭০০ টাকা

 

(গ)  ১০ লক্ষ টাকার উর্ধে কিন্তু ৩০ লক্ষ টাকা

১২০০ টাকা

 

(ঘ)  ৩০ লক্ষ টাকার উর্ধে কিন্তু ৫০ লক্ষ টাকা

১৮০০ টাকা

 

(ঙ)  ৫০ লক্ষ টাকার উর্ধে

২০০০ টাকা

৬।

ট্রস্ট দলিলের ক্ষেত্রে ফিস প্রদেয়

 

 

(ক)  ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত সর্বনিম্ন

১০০ টাকা

 

(খ)  ৫ হাজার টাকার উর্ধ্বে

২৫০০ টাকা

৭।

উইল দলিল রেজিষ্ট্রীকরন বা উইল নাখোশ বা রদ করার জন্য

২০০ টাকা

৮।

দলিলের নোটিশের ক্ষেত্রে কোর্ট ফি

১০ টাকা

তাল্লাশ/ পরিদর্শন/ নকল ফিস

১।

তাল্লাশঃ প্রতি দলিলে বর্ণিত সম্পত্তি ২নং সূচী বা ব্যক্তির নামের ১নং সূচী প্রতি এন্ট্রি জমা

 

ক) প্রথম ১ বছরের জন্য ১০ টাকা এবং একাধিক বছরের জন্য প্রতি বৎসর ১০ টাকা।

 

খ) নকল ফিসঃ প্রতি ৩০০ শব্দের জন্য ৯ টাকা এবং ইংরেজী ৩০০ শব্দের জন্য ১৫ টাকা ফিস প্রদেয় এবং জরুরী নকলের ক্ষেত্রে ২০ টাকা অথবা ৪ পৃষ্ঠার বেশী হলে প্রতি পৃষ্ঠা ৫ টাকা হারে।

 

নকলের কোর্ট ফি ২০ টাকা।

ষ্টাম্প শুল্কের হার

১।

কবালা/ দানপত্র/ বিনিময় দলিলের ক্ষেত্রে সম্পত্তির

৩% হারে

২।

সম্পত্তি বিক্রয়ে বায়না/ চুক্তি /রেকর্ড মুক্তি/ ভ্রম সংশোধন/ হ্রদকরণ/ রিডেমশন এর ক্ষেত্রে

১৫০/- টাকা

৩।

হেবা/ হলফনামা/ ঘোষণাপত্র

৫০ টাকা।

৪।

আমমোক্তার নামা দলিলে

২০০ টাকা।

৫।

ওয়াকফ নামা/ অর্পননামা/ সেটেলমেন্ট দলিলের ক্ষেত্রে

২% হারে।

৬।

বন্ধকী দলিল (ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান)

 

ক) ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

১৫০০ টাকা।

 

খ) ১০ লক্ষ টাকার উর্ধে অনুর্ধ ৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

৩৫০০/- টাকা।

 

গ) ৫০ লক্ষ টাকার উর্ধে অবশিষ্ট ঋণের উপর

০.১০% হারে।

৭।

ট্রাষ্ট দলিল

৩৩/৭৫ টাকা।

৮।

অতিরিক্ত ফিস

 

ক) ৩১ ধারা কমিশনের ক্ষেত্রে জে (১)  ৩০০ টাকা

 

খ) এন ফিস প্রতি পৃষ্ঠা ২৫ টাকা হারে।

 

গ) দলিল রেজিষ্ট্রী সম্পূর্ন হওয়ার পর ফেরত দলিল এক মাসের বেশী অফিসে থাকিলে প্রতি মাসের জন্য ৩ টাকা হারে ফিস প্রদেয় এবং সর্বোচ্চ ৫০ টাকা।

     

প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। তবে কোন কোন বড় উপজেলায় একাধিক সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। অপরদিকে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় একাধিক থানা(পুলিশ স্টেশন)নিয়ে একেকটি সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের অধিক্ষেত্র গঠিত হয়েছে। এই অফিস  আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন ও মহা পরিদর্শক, নিবন্ধন-এর অধীনে পরিচালিত। দপ্তর প্রধানের পদবী:  সাব-রেজিস্ট্রার। কার্যক্রম:  সাব-রেজিস্ট্রী অফিসএর উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমগুলি হলঃ স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্র্রকারের দলিল রেজিস্ট্রেশন, রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ সংরক্ষন করা, আগ্রহী পক্ষকে রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ ও অনুলিপি(সার্টিফাইড কপি) সরবরাহ করা, সরকারী রাজস্ব আদায় করা, সংশ্লিষ্ট ভূমি অফিসে LT নোটিশপ্রেরনকরা, ব্যাংক/আর্থিকপ্রতিষ্ঠানেরঅনুকুলেদায়মূক্তসনদ(NEC)ইস্যুকরা, দেওয়ানীআদালতেরমামলায়জমিরমালিকানাসংক্রান্তবিরোধেরনিস্পত্তিরপ্রয়োজনেরেকর্ড-পত্রউপস্থাপনকরাইত্যাদি।

সাধারণ তথ্য

ক্র:নং

         সেবা

সেবা প্রদান/প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অসুবিধা সমুহ

  নাগরিক পর্যায়ে

  সরকারী পর্যায়ে

০১

দলিল সংক্রান্ত পরামর্শ

জনসাধারনকে দলিল রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে পরামর্শ ও দলিল প্রস্তুত করার জন্য একজন দলিল লেখক বা উকিলের শরনাপন্ন হতে হয়। অনেক ক্ষেত্রেই দক্ষ দলিল লিখকের অভাব রয়েছে্। দলিল প্রস্তুত করার জন্য জনগনকে যথেষ্ট সময় ও অর্থ ব্যয় করতে হয়।

যেকোন ব্যক্তি ইচ্ছা করলে সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট থেকে দলিলের রেজিস্টেশন সংক্রান্ত বিষয়ে বিনাখরচে পরামর্শ পেতে পারে। সীমিত জনবলের কারনে প্রতিটি দলিল রেজিস্ট্রে্শনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট সকলকে পরামর্শ প্রদান করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয়না।

 

প্রতিটি অফিসে নির্দিষ্ট পরামর্শ ডেস্ক না থাকায় জনগন পরামর্শ প্রাপ্তির বিষয়ে অবগত নয়।

 

০২

দলিল রেজিস্ট্রেশন

দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমান সংগ্রহ করা জনসাধারনের জন্য সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়সাধ্য বিষয়্। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জমি হস্তান্তর আইন ও বিধি বিধান এবং জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত খরচ সম্পর্কে জনগনের স্পষ্ট ধারনা থাকেনা্। দলিলের ফি প্রদান বাবদ ব্যাংকে বিভিন্ন দফায় টাকা জমা প্রদান করে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে যথেষ্ট সময় ও বাড়তি অর্থ ব্যয় করতে হয়।   

জমির মালিকানা সংক্রান্ত স্বয়ংসম্পূর্ন কোন ডাটাবেইজ না থাকায় এবং রেজিস্ট্রী অফিসে জমির মলিকানা সংক্রান্ত আর,ও,আর, না থাকায় উপস্থাপিত তথ্য সমূহ যাচাই করা সম্ভব হয়না।

 

ভিন্ন ভিন্ন দফায় ও  ভিন্ন ভিন্ন পে-অর্ডারে টাকা গ্রহন করা অসুবিধা জনক।

০৩

মূল দলিল সংশ্লিষ্ট পক্ষকে ফেরৎ প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক দলিলের দাখিল গ্রহনের পর পর্যায়ক্রমে বালাম বইতে মূল দলিলের একটি অবিকল প্রতিলিপি প্রস্তুত করা হয় এবং বিধি অনুযায়ী সুচী প্রস্তুত করার পর পক্ষকে মূল দলিল ফেরত প্রদান করা হয়্। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে অফিস ভেদে ১৫দিন থেকে ২/৩ বছর সময় লেগে যায়।ফলে জনগনকে মূল দলিল ফেরৎ পেতে এই দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে দলিল নকলের কাজ ও সূচীর কাজ করতে হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত জনবল ও বালাম বই-এর নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ না থাকায় সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের পরিস্থিতি উন্নয়নে তেমন কিছুই করার থাকেনা। এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ন রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হলে এই দুর্ভোগ লাঘব করা সম্ভব।

০৪

তল্লাশ ও পরিদর্শন

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে তল্লাশ কারকের মাধ্যমে বা স্বয়ং সূচী বই তল্লাশ প্রদান পূর্বক কোন সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য সংগ্রহ করতে পারে বা বালাম বই পরিদর্শন করতে পারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমুহ ডাটা বেইজ নাথাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

০৫

নকল প্রদান

নির্ধারিতফিসজমাদিয়েআগ্রহীপক্ষরেজিস্ট্রীকৃতযেকোনদলিলওসূচীরনকলতুলতেপারে।

বালাম ও সূচীবই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে নকল প্রস্তুত করে সরবরাহ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয়।

০৬

দায়মুক্ত(NEC) সনদপ্রদান

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে কোনসম্পত্তিরদায়মুক্ত(NEC) সনদসংগ্রহকরতেপারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমূহ ডাটা বেইজ না থাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

 

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ মিজানুর রহমান ০১৭১২ ৫১১৮৬১

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ মিজানুর রহমান ০১৭১২ ৫১১৮৬১

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ আব্দুল হালিম

    উপজেলা সাব-রেজিস্টার অফিসের তেমন কোন গুরুত্বপূর্ন প্রকল্প নেই।এই সংস্থা মূলত ভূমি বিষয়ক বিভিন্ন কাযক্রম সম্পাদন করে থাকে।ভূমি রেজিষ্টার বিষয়ক প্রকল্প নেয়া হচ্ছে,তাদের কাযক্রমকে বেগবান করার লক্ষ

বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

 যোগাযোগ :

 

তাজপুর সাব-রেজিষ্টার অফিস, পোঃ তাজপুর, থানাঃ ওসমানীনগর,উপজেলাঃ 

 

বালাগঞ্জ,জেলাঃ সিলেট। কর্মকর্তার নাম : মো: মিজানুর রহমান  মোবাইল -০১৭১২৫১১৮৬১



Share with :

Facebook Twitter